মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন

 

মোঃ জাকির হোসেন চেয়ারম্যান,দরাজহাট ইউনিয়নপরিষদ পূর্ববর্তী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত পাঠ করে শুনান

পূর্ববর্তী সভার কার্য বিবরণী উপস্হিত সকলের সমস্মুখে পাঠ করিয়া শোনান  হইল এবং অনুমোদিত হইল ।

চেয়ারম্যান দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ

 

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন সভাকে জানান যে, বর্তমান বোরো ধান মৌসুমে সারের কোন ঘাটতি নেই ।এলাকায় প্রচুর বোরো ধানের চাষ হয়েছে ।আশা করা যায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হইবে ।

যে সমস্ত জমিতে সরিষা, ছোলা, মুসুরী, গম, ছিল ঐ জমিতে কৃষককে আউশ ধান ও পাঠ চাষের এবং তিল চাষের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

 

মোছাঃ মমতাজ বেগম উপ-সহকারী প্রকৌশলী ,বাঘারপাড়া , যশোর । সভাকে জানান যে, তার দপ্তরের বরাদ্ধকৃত এডিপি ও কাজের প্রকল্প  প্রস্তুত করা হইয়াছে ।এবং কাজ গুলো সুষ্ঠ ভাবে তদারকি করা হচ্ছে এবং কাজের মান খুব ভাল ।

বরাদ্ধকৃত যাবতীয় কাজের নিয়মিত দেখাশুনা করা হচ্ছে ।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী , বাঘারপাড়া যশোর ।

 

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলচনা হয়নি ।

 

 

 

শ্রী ভুপেন চন্দ্র কৃত্রিম প্রজনন প্রানী সম্পদ বিভাগ জানান যে, ফেবুয়ারী/১৩ মাসে কৃত্রিম প্রজনের হার ১০৮% এবং মার্চ /১৩ মাসের কৃত্রিম প্রজনের হার ৭৫% অর্জিত হয়েছে ।তার বিভাগে ইউনিয়নের সমস্ত স্থানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কৃমি নাশক ঔষধ ক্রয় ও সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত  হয় ।

ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট কৃত্রিম প্রজনন

 

মোঃ শাহাজান সিরাজ ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ বিভাগ সভাকে জানান যে, তার দপ্তরে নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে মোট ৫টি মুরগীর খামার দুইটি গাভীর খামার দুইটি ছাগলের খামার দইটি প্লটে উন্নত জাতের হাস চাষ করা হচ্ছে ।খামারী গণকে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কিছু সহযোগিতা করা হইবে ।

ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ

বিভাগ

 

 

বিপুল কুমার সরকার ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট মৎস্য বিভাগ, জানান যে তার দপ্তরে ।অত্র দরাজহাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া ও কালিকাপুর গ্রামে জাতিয় কৃষি প্রযুক্তি প্কল্পের আওতায়  ২টি সি আ্‌ই জি আছে ।তাদের মোট =৩০ টি জলাশয়ে পোনা মজুদের পূর্ব প্রস্তুতের কাজরে পরামর্শ দেওয়া হইয়াছে ।২ টি সি আই জিতে  কমিটি গঠন করিয়া কমিটি/ সমিতি এর নামে ছাতিয়ানতলাজনতা ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট  খোলা ব্যাবস্থা করা হইয়াছে ।তাহা ইউনিয়নের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করাহ ইয়াছে।

।প্রশিক্ষন প্রাপ্ত মৎস্য চাষীদের  প্রকুর পরিদর্শন ও মাছ চাষে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । এনএটিপি প্রকল্পের অধীনে ২টি প্রদর্শনী স্থাপনের কাজ প্রাথমিক ভাবে শেষ করা হয়েছে । বিভিন্ন হাট বাজারে ফরমালিন দূষনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মাছের ফরমালিন টেষ্ট করা হচ্ছে ।

বিপুল কুমার সরকার , ফিল্ড এ্যাসিষট্যান্ট মৎস্য বিভাগ ।

 

মোঃ মিজানুর রহমান পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক জানান যে তার বিভাগের আত্র দরাজহাট ইউনিয়নে চলতি অর্থ বৎসরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার-

১)বন্ধ্যা করনের হার=১০২.৭৭%(২)আই ইউ ডি-হার=২৫.৯২ (৩)ইমপ।লন্ট হার=৯৪.১১% ৪) খাবার বড়ীরহার=৮৯.১০% ৫) কন্ডমের হার =১৪৮.২% ৬) ইনজেকসনের হার=৮৮.৪৪% ।

 

অত্র ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা কার্য্যক্রম সফলতা আনায়নের কাজ করে যাচ্ছ্ এবং আশানুরুপ সকল প্রকার চেষ্টা অব্যহত রাখা  হবে ।

পরিবার পরিকল্পানা পরিদর্শক/এফ ডাব্লিউ এ/ইউপি সদস্য/সদস্যা গন ।

 

 

মোঃ হাফিজুর রহমান সহকারী স্ব্যাস্থ্য পরিদর্শক সভাকে জানান য়ে,তার বিভাগে নিয়মিত ভাবে ভিটামিন  এ ক্যাপসুল ভখাওয়ান ওপলিও টিকা  দেওয়া এবং কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নিয়মিত সবো প্রদান করা হচ্ছে ।আগামিতে স্ব্যাস্থ্য সেবা জোরদার করা হবে ।

৫ বছরের নিচের সকল শিশুকে টিকা দেওয়া এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোেধর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিশুকে ৬ মাস পরপর কৃমিনাশক খাওয়ানো হচ্ছে এবং আর্সোনক পরীক্ষা করা হচ্ছে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিশেষ প্রয়োজন ।বিষয়গুলি আরও জুরুরী ভাবে বিবেচনায় আনতে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।

সহকারী স্বস্থ্য পরিদর্শক ,বাঘারপাড়া, যশোর ।

১০

 

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি।

 

 

১১

 

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১২

 

মোঃ ইউছুপ আলী নলকুপ ম্যাকানিক জানান যে, তার বিভাগ নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০১১/১২ ।আর্থ বৎসরে দরাজহাট ইউনিয়নের মোট=৪ টা গভীর নলকুপ ও ২টা অগভীর নলকুপ সুষ্ঠ ভাবে স্হাপন করা হইয়াছে।

স্হাপন করা নলকুপ গুলি নিয়মিত ভাবে দেখা শূনা করা হচ্ছে।

মোঃ ইউছুপ  নলকুপ ম্যাকানিক ও সদস্য /সদস্যা গণ ।

১৩

 

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৪

 

মোঃ ফারুক হোসেন ম্যারেজ রেজিষ্টার সভাকে জানান যে,অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে বিনা রেজিষ্টারে কোন বিবাহ হয়নি এবং কোন অপ্রাপ্ত ছেলে মেয়েদের বিবাহ হয়নি ।আপ্রাপ্ত কোন ছেলে মেয়েদের যাতে বিবাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে ।

ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও ম্যারেজ রেজিষ্টার অপ্রাপ্ত বালক -বালিকা বিবাহ না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবে । 

 

১৫

 

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৬

 

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৭

 

মোঃ আবু খায়ের ব্যাবস্যায়ী প্রতিনিধী সভাকে জানান যে,বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মানুষের  চাগহদা মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছেএবং বাজারে মালামাল  সাধারন মানুষের  ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আছে ।

ইউনিয়নের সকল বাজারের ব্যবসা যাহাতে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হতে পারে সে বিষয় লক্ষ রাখবে ।

বাজার ব্যাবসা কমিটি ও ইউনিয়ন  পরিষদ

১৮

 

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৯

 

ছকিনা বেগম সভাকে জানান যে, প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় ।

প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় । উক্ত বিষয়টি সভায় গৃহিত হইলো ।

সদস্যা ইউনিয়ন পরিষদ

২০

 

মোঃ আনোয়ার হোসেন সুপার সদস্য স্হায়ী কমিটি সভাকে জানান যে,ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ যেমন-কাবখা, টি আর এডিপি,কর্মসৃজন  সুষ্ঠভাবে  সম্পান্নকরা হইতেঝে। ভবিষ্যাতে অত ইউনিয়নে উন্নয়ন কার্য্যক্রম ভাল হয় ।সে বিষয়ে উস্থিত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গনকে একমত পোষন করেন।

 

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সদস্যাগণ

পূর্ববর্তী সভার কার্য্য বিবরণী পঠন ও অনুমোদন

মোঃ জাকির হোসেন চেয়ারম্যান,দরাজহাট ইউনিয়নপরিষদ পূর্ববর্তী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত পাঠ করে শুনান

পূর্ববর্তী সভার কার্য বিবরণী উপস্হিত সকলের সমস্মুখে পাঠ করিয়া শোনান  হইল এবং অনুমোদিত হইল ।

চেয়ারম্যান দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ

কৃষি বিভাগ

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন সভাকে জানান যে, বর্তমান বোরো ধান মৌসুমে সারের কোন ঘাটতি নেই ।এলাকায় প্রচুর বোরো ধানের চাষ হয়েছে ।আশা করা যায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হইবে ।

যে সমস্ত জমিতে সরিষা, ছোলা, মুসুরী, গম, ছিল ঐ জমিতে কৃষককে আউশ ধান ও পাঠ চাষের এবং তিল চাষের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

এল, জি, ই ,ডি

মোছাঃ মমতাজ বেগম উপ-সহকারী প্রকৌশলী ,বাঘারপাড়া , যশোর । সভাকে জানান যে, তার দপ্তরের বরাদ্ধকৃত এডিপি ও কাজের প্রকল্প  প্রস্তুত করা হইয়াছে ।এবং কাজ গুলো সুষ্ঠ ভাবে তদারকি করা হচ্ছে এবং কাজের মান খুব ভাল ।

বরাদ্ধকৃত যাবতীয় কাজের নিয়মিত দেখাশুনা করা হচ্ছে ।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী , বাঘারপাড়া যশোর ।

শিক্ষা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলচনা হয়নি ।

 

 

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

শ্রী ভুপেন চন্দ্র কৃত্রিম প্রজনন প্রানী সম্পদ বিভাগ জানান যে, ফেবুয়ারী/১৩ মাসে কৃত্রিম প্রজনের হার ১০৮% এবং মার্চ /১৩ মাসের কৃত্রিম প্রজনের হার ৭৫% অর্জিত হয়েছে ।তার বিভাগে ইউনিয়নের সমস্ত স্থানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কৃমি নাশক ঔষধ ক্রয় ও সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত  হয় ।

ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট কৃত্রিম প্রজনন

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

মোঃ শাহাজান সিরাজ ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ বিভাগ সভাকে জানান যে, তার দপ্তরে নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে মোট ৫টি মুরগীর খামার দুইটি গাভীর খামার দুইটি ছাগলের খামার দইটি প্লটে উন্নত জাতের হাস চাষ করা হচ্ছে ।খামারী গণকে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কিছু সহযোগিতা করা হইবে ।

ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ

বিভাগ

 

মৎস্য বিভাগ

বিপুল কুমার সরকার ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট মৎস্য বিভাগ, জানান যে তার দপ্তরে ।অত্র দরাজহাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া ও কালিকাপুর গ্রামে জাতিয় কৃষি প্রযুক্তি প্কল্পের আওতায়  ২টি সি আ্‌ই জি আছে ।তাদের মোট =৩০ টি জলাশয়ে পোনা মজুদের পূর্ব প্রস্তুতের কাজরে পরামর্শ দেওয়া হইয়াছে ।২ টি সি আই জিতে  কমিটি গঠন করিয়া কমিটি/ সমিতি এর নামে ছাতিয়ানতলাজনতা ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট  খোলা ব্যাবস্থা করা হইয়াছে ।তাহা ইউনিয়নের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করাহ ইয়াছে।

।প্রশিক্ষন প্রাপ্ত মৎস্য চাষীদের  প্রকুর পরিদর্শন ও মাছ চাষে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । এনএটিপি প্রকল্পের অধীনে ২টি প্রদর্শনী স্থাপনের কাজ প্রাথমিক ভাবে শেষ করা হয়েছে । বিভিন্ন হাট বাজারে ফরমালিন দূষনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মাছের ফরমালিন টেষ্ট করা হচ্ছে ।

বিপুল কুমার সরকার , ফিল্ড এ্যাসিষট্যান্ট মৎস্য বিভাগ ।

পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ

মোঃ মিজানুর রহমান পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক জানান যে তার বিভাগের আত্র দরাজহাট ইউনিয়নে চলতি অর্থ বৎসরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার-

১)বন্ধ্যা করনের হার=১০২.৭৭%(২)আই ইউ ডি-হার=২৫.৯২ (৩)ইমপ।লন্ট হার=৯৪.১১% ৪) খাবার বড়ীরহার=৮৯.১০% ৫) কন্ডমের হার =১৪৮.২% ৬) ইনজেকসনের হার=৮৮.৪৪% ।

 

অত্র ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা কার্য্যক্রম সফলতা আনায়নের কাজ করে যাচ্ছ্ এবং আশানুরুপ সকল প্রকার চেষ্টা অব্যহত রাখা  হবে ।

পরিবার পরিকল্পানা পরিদর্শক/এফ ডাব্লিউ এ/ইউপি সদস্য/সদস্যা গন ।

 

স্বাস্থ্য বিভাগ

মোঃ হাফিজুর রহমান সহকারী স্ব্যাস্থ্য পরিদর্শক সভাকে জানান য়ে,তার বিভাগে নিয়মিত ভাবে ভিটামিন  এ ক্যাপসুল ভখাওয়ান ওপলিও টিকা  দেওয়া এবং কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নিয়মিত সবো প্রদান করা হচ্ছে ।আগামিতে স্ব্যাস্থ্য সেবা জোরদার করা হবে ।

৫ বছরের নিচের সকল শিশুকে টিকা দেওয়া এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোেধর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিশুকে ৬ মাস পরপর কৃমিনাশক খাওয়ানো হচ্ছে এবং আর্সোনক পরীক্ষা করা হচ্ছে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিশেষ প্রয়োজন ।বিষয়গুলি আরও জুরুরী ভাবে বিবেচনায় আনতে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।

সহকারী স্বস্থ্য পরিদর্শক ,বাঘারপাড়া, যশোর ।

১০

সমাজ সেবা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি।

 

 

১১

আনছার ভি ,ডি,পি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১২

জন স্বাস্হ্য প্রকৌশল  বিভাগ

মোঃ ইউছুপ আলী নলকুপ ম্যাকানিক জানান যে, তার বিভাগ নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০১১/১২ ।আর্থ বৎসরে দরাজহাট ইউনিয়নের মোট=৪ টা গভীর নলকুপ ও ২টা অগভীর নলকুপ সুষ্ঠ ভাবে স্হাপন করা হইয়াছে।

স্হাপন করা নলকুপ গুলি নিয়মিত ভাবে দেখা শূনা করা হচ্ছে।

মোঃ ইউছুপ  নলকুপ ম্যাকানিক ও সদস্য /সদস্যা গণ ।

১৩

বি আর ডি বি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৪

ম্যারেজ রেজিষ্টার

মোঃ ফারুক হোসেন ম্যারেজ রেজিষ্টার সভাকে জানান যে,অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে বিনা রেজিষ্টারে কোন বিবাহ হয়নি এবং কোন অপ্রাপ্ত ছেলে মেয়েদের বিবাহ হয়নি ।আপ্রাপ্ত কোন ছেলে মেয়েদের যাতে বিবাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে ।

ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও ম্যারেজ রেজিষ্টার অপ্রাপ্ত বালক -বালিকা বিবাহ না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবে । 

 

১৫

সি ও এল জি ই ডি

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৬

বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা প্রতিনিধি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৭

স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধি

মোঃ আবু খায়ের ব্যাবস্যায়ী প্রতিনিধী সভাকে জানান যে,বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মানুষের  চাগহদা মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছেএবং বাজারে মালামাল  সাধারন মানুষের  ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আছে ।

ইউনিয়নের সকল বাজারের ব্যবসা যাহাতে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হতে পারে সে বিষয় লক্ষ রাখবে ।

বাজার ব্যাবসা কমিটি ও ইউনিয়ন  পরিষদ

১৮

ধর্মীয় নেতা

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৯

নারী প্রতিনিধি

ছকিনা বেগম সভাকে জানান যে, প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় ।

প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় । উক্ত বিষয়টি সভায় গৃহিত হইলো ।

সদস্যা ইউনিয়ন পরিষদ

২০

বিবিধ

মোঃ আনোয়ার হোসেন সুপার সদস্য স্হায়ী কমিটি সভাকে জানান যে,ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ যেমন-কাবখা, টি আর এডিপি,কর্মসৃজন  সুষ্ঠভাবে  সম্পান্নকরা হইতেঝে। ভবিষ্যাতে অত ইউনিয়নে উন্নয়ন কার্য্যক্রম ভাল হয় ।সে বিষয়ে উস্থিত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গনকে একমত পোষন করেন।

 

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সদস্যাগণ

পূর্ববর্তী সভার কার্য্য বিবরণী পঠন ও অনুমোদন

মোঃ জাকির হোসেন চেয়ারম্যান,দরাজহাট ইউনিয়নপরিষদ পূর্ববর্তী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত পাঠ করে শুনান

পূর্ববর্তী সভার কার্য বিবরণী উপস্হিত সকলের সমস্মুখে পাঠ করিয়া শোনান  হইল এবং অনুমোদিত হইল ।

চেয়ারম্যান দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ

কৃষি বিভাগ

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন সভাকে জানান যে, বর্তমান বোরো ধান মৌসুমে সারের কোন ঘাটতি নেই ।এলাকায় প্রচুর বোরো ধানের চাষ হয়েছে ।আশা করা যায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হইবে ।

যে সমস্ত জমিতে সরিষা, ছোলা, মুসুরী, গম, ছিল ঐ জমিতে কৃষককে আউশ ধান ও পাঠ চাষের এবং তিল চাষের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

এল, জি, ই ,ডি

মোছাঃ মমতাজ বেগম উপ-সহকারী প্রকৌশলী ,বাঘারপাড়া , যশোর । সভাকে জানান যে, তার দপ্তরের বরাদ্ধকৃত এডিপি ও কাজের প্রকল্প  প্রস্তুত করা হইয়াছে ।এবং কাজ গুলো সুষ্ঠ ভাবে তদারকি করা হচ্ছে এবং কাজের মান খুব ভাল ।

বরাদ্ধকৃত যাবতীয় কাজের নিয়মিত দেখাশুনা করা হচ্ছে ।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী , বাঘারপাড়া যশোর ।

শিক্ষা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলচনা হয়নি ।

 

 

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

শ্রী ভুপেন চন্দ্র কৃত্রিম প্রজনন প্রানী সম্পদ বিভাগ জানান যে, ফেবুয়ারী/১৩ মাসে কৃত্রিম প্রজনের হার ১০৮% এবং মার্চ /১৩ মাসের কৃত্রিম প্রজনের হার ৭৫% অর্জিত হয়েছে ।তার বিভাগে ইউনিয়নের সমস্ত স্থানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কৃমি নাশক ঔষধ ক্রয় ও সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত  হয় ।

ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট কৃত্রিম প্রজনন

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

মোঃ শাহাজান সিরাজ ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ বিভাগ সভাকে জানান যে, তার দপ্তরে নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে মোট ৫টি মুরগীর খামার দুইটি গাভীর খামার দুইটি ছাগলের খামার দইটি প্লটে উন্নত জাতের হাস চাষ করা হচ্ছে ।খামারী গণকে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কিছু সহযোগিতা করা হইবে ।

ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ

বিভাগ

 

মৎস্য বিভাগ

বিপুল কুমার সরকার ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট মৎস্য বিভাগ, জানান যে তার দপ্তরে ।অত্র দরাজহাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া ও কালিকাপুর গ্রামে জাতিয় কৃষি প্রযুক্তি প্কল্পের আওতায়  ২টি সি আ্‌ই জি আছে ।তাদের মোট =৩০ টি জলাশয়ে পোনা মজুদের পূর্ব প্রস্তুতের কাজরে পরামর্শ দেওয়া হইয়াছে ।২ টি সি আই জিতে  কমিটি গঠন করিয়া কমিটি/ সমিতি এর নামে ছাতিয়ানতলাজনতা ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট  খোলা ব্যাবস্থা করা হইয়াছে ।তাহা ইউনিয়নের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করাহ ইয়াছে।

।প্রশিক্ষন প্রাপ্ত মৎস্য চাষীদের  প্রকুর পরিদর্শন ও মাছ চাষে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । এনএটিপি প্রকল্পের অধীনে ২টি প্রদর্শনী স্থাপনের কাজ প্রাথমিক ভাবে শেষ করা হয়েছে । বিভিন্ন হাট বাজারে ফরমালিন দূষনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মাছের ফরমালিন টেষ্ট করা হচ্ছে ।

বিপুল কুমার সরকার , ফিল্ড এ্যাসিষট্যান্ট মৎস্য বিভাগ ।

পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ

মোঃ মিজানুর রহমান পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক জানান যে তার বিভাগের আত্র দরাজহাট ইউনিয়নে চলতি অর্থ বৎসরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার-

১)বন্ধ্যা করনের হার=১০২.৭৭%(২)আই ইউ ডি-হার=২৫.৯২ (৩)ইমপ।লন্ট হার=৯৪.১১% ৪) খাবার বড়ীরহার=৮৯.১০% ৫) কন্ডমের হার =১৪৮.২% ৬) ইনজেকসনের হার=৮৮.৪৪% ।

 

অত্র ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা কার্য্যক্রম সফলতা আনায়নের কাজ করে যাচ্ছ্ এবং আশানুরুপ সকল প্রকার চেষ্টা অব্যহত রাখা  হবে ।

পরিবার পরিকল্পানা পরিদর্শক/এফ ডাব্লিউ এ/ইউপি সদস্য/সদস্যা গন ।

 

স্বাস্থ্য বিভাগ

মোঃ হাফিজুর রহমান সহকারী স্ব্যাস্থ্য পরিদর্শক সভাকে জানান য়ে,তার বিভাগে নিয়মিত ভাবে ভিটামিন  এ ক্যাপসুল ভখাওয়ান ওপলিও টিকা  দেওয়া এবং কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নিয়মিত সবো প্রদান করা হচ্ছে ।আগামিতে স্ব্যাস্থ্য সেবা জোরদার করা হবে ।

৫ বছরের নিচের সকল শিশুকে টিকা দেওয়া এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোেধর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিশুকে ৬ মাস পরপর কৃমিনাশক খাওয়ানো হচ্ছে এবং আর্সোনক পরীক্ষা করা হচ্ছে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিশেষ প্রয়োজন ।বিষয়গুলি আরও জুরুরী ভাবে বিবেচনায় আনতে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।

সহকারী স্বস্থ্য পরিদর্শক ,বাঘারপাড়া, যশোর ।

১০

সমাজ সেবা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি।

 

 

১১

আনছার ভি ,ডি,পি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১২

জন স্বাস্হ্য প্রকৌশল  বিভাগ

মোঃ ইউছুপ আলী নলকুপ ম্যাকানিক জানান যে, তার বিভাগ নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০১১/১২ ।আর্থ বৎসরে দরাজহাট ইউনিয়নের মোট=৪ টা গভীর নলকুপ ও ২টা অগভীর নলকুপ সুষ্ঠ ভাবে স্হাপন করা হইয়াছে।

স্হাপন করা নলকুপ গুলি নিয়মিত ভাবে দেখা শূনা করা হচ্ছে।

মোঃ ইউছুপ  নলকুপ ম্যাকানিক ও সদস্য /সদস্যা গণ ।

১৩

বি আর ডি বি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৪

ম্যারেজ রেজিষ্টার

মোঃ ফারুক হোসেন ম্যারেজ রেজিষ্টার সভাকে জানান যে,অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে বিনা রেজিষ্টারে কোন বিবাহ হয়নি এবং কোন অপ্রাপ্ত ছেলে মেয়েদের বিবাহ হয়নি ।আপ্রাপ্ত কোন ছেলে মেয়েদের যাতে বিবাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে ।

ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও ম্যারেজ রেজিষ্টার অপ্রাপ্ত বালক -বালিকা বিবাহ না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবে । 

 

১৫

সি ও এল জি ই ডি

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৬

বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা প্রতিনিধি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৭

স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধি

মোঃ আবু খায়ের ব্যাবস্যায়ী প্রতিনিধী সভাকে জানান যে,বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মানুষের  চাগহদা মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছেএবং বাজারে মালামাল  সাধারন মানুষের  ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আছে ।

ইউনিয়নের সকল বাজারের ব্যবসা যাহাতে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হতে পারে সে বিষয় লক্ষ রাখবে ।

বাজার ব্যাবসা কমিটি ও ইউনিয়ন  পরিষদ

১৮

ধর্মীয় নেতা

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৯

নারী প্রতিনিধি

ছকিনা বেগম সভাকে জানান যে, প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় ।

প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় । উক্ত বিষয়টি সভায় গৃহিত হইলো ।

সদস্যা ইউনিয়ন পরিষদ

২০

বিবিধ

মোঃ আনোয়ার হোসেন সুপার সদস্য স্হায়ী কমিটি সভাকে জানান যে,ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ যেমন-কাবখা, টি আর এডিপি,কর্মসৃজন  সুষ্ঠভাবে  সম্পান্নকরা হইতেঝে। ভবিষ্যাতে অত ইউনিয়নে উন্নয়ন কার্য্যক্রম ভাল হয় ।সে বিষয়ে উস্থিত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গনকে একমত পোষন করেন।

 

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সদস্যাগণ

 

পূর্ববর্তী সভার কার্য্য বিবরণী পঠন ও অনুমোদন

মোঃ জাকির হোসেন চেয়ারম্যান,দরাজহাট ইউনিয়নপরিষদ পূর্ববর্তী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত পাঠ করে শুনান

পূর্ববর্তী সভার কার্য বিবরণী উপস্হিত সকলের সমস্মুখে পাঠ করিয়া শোনান  হইল এবং অনুমোদিত হইল ।

চেয়ারম্যান দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ

কৃষি বিভাগ

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন সভাকে জানান যে, বর্তমান বোরো ধান মৌসুমে সারের কোন ঘাটতি নেই ।এলাকায় প্রচুর বোরো ধানের চাষ হয়েছে ।আশা করা যায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হইবে ।

যে সমস্ত জমিতে সরিষা, ছোলা, মুসুরী, গম, ছিল ঐ জমিতে কৃষককে আউশ ধান ও পাঠ চাষের এবং তিল চাষের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

এল, জি, ই ,ডি

মোছাঃ মমতাজ বেগম উপ-সহকারী প্রকৌশলী ,বাঘারপাড়া , যশোর । সভাকে জানান যে, তার দপ্তরের বরাদ্ধকৃত এডিপি ও কাজের প্রকল্প  প্রস্তুত করা হইয়াছে ।এবং কাজ গুলো সুষ্ঠ ভাবে তদারকি করা হচ্ছে এবং কাজের মান খুব ভাল ।

বরাদ্ধকৃত যাবতীয় কাজের নিয়মিত দেখাশুনা করা হচ্ছে ।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী , বাঘারপাড়া যশোর ।

শিক্ষা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলচনা হয়নি ।

 

 

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

শ্রী ভুপেন চন্দ্র কৃত্রিম প্রজনন প্রানী সম্পদ বিভাগ জানান যে, ফেবুয়ারী/১৩ মাসে কৃত্রিম প্রজনের হার ১০৮% এবং মার্চ /১৩ মাসের কৃত্রিম প্রজনের হার ৭৫% অর্জিত হয়েছে ।তার বিভাগে ইউনিয়নের সমস্ত স্থানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কৃমি নাশক ঔষধ ক্রয় ও সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত  হয় ।

ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট কৃত্রিম প্রজনন

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

মোঃ শাহাজান সিরাজ ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ বিভাগ সভাকে জানান যে, তার দপ্তরে নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে মোট ৫টি মুরগীর খামার দুইটি গাভীর খামার দুইটি ছাগলের খামার দইটি প্লটে উন্নত জাতের হাস চাষ করা হচ্ছে ।খামারী গণকে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কিছু সহযোগিতা করা হইবে ।

ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ

বিভাগ

 

মৎস্য বিভাগ

বিপুল কুমার সরকার ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট মৎস্য বিভাগ, জানান যে তার দপ্তরে ।অত্র দরাজহাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া ও কালিকাপুর গ্রামে জাতিয় কৃষি প্রযুক্তি প্কল্পের আওতায়  ২টি সি আ্‌ই জি আছে ।তাদের মোট =৩০ টি জলাশয়ে পোনা মজুদের পূর্ব প্রস্তুতের কাজরে পরামর্শ দেওয়া হইয়াছে ।২ টি সি আই জিতে  কমিটি গঠন করিয়া কমিটি/ সমিতি এর নামে ছাতিয়ানতলাজনতা ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট  খোলা ব্যাবস্থা করা হইয়াছে ।তাহা ইউনিয়নের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করাহ ইয়াছে।

।প্রশিক্ষন প্রাপ্ত মৎস্য চাষীদের  প্রকুর পরিদর্শন ও মাছ চাষে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । এনএটিপি প্রকল্পের অধীনে ২টি প্রদর্শনী স্থাপনের কাজ প্রাথমিক ভাবে শেষ করা হয়েছে । বিভিন্ন হাট বাজারে ফরমালিন দূষনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মাছের ফরমালিন টেষ্ট করা হচ্ছে ।

বিপুল কুমার সরকার , ফিল্ড এ্যাসিষট্যান্ট মৎস্য বিভাগ ।

পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ

মোঃ মিজানুর রহমান পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক জানান যে তার বিভাগের আত্র দরাজহাট ইউনিয়নে চলতি অর্থ বৎসরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার-

১)বন্ধ্যা করনের হার=১০২.৭৭%(২)আই ইউ ডি-হার=২৫.৯২ (৩)ইমপ।লন্ট হার=৯৪.১১% ৪) খাবার বড়ীরহার=৮৯.১০% ৫) কন্ডমের হার =১৪৮.২% ৬) ইনজেকসনের হার=৮৮.৪৪% ।

 

অত্র ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা কার্য্যক্রম সফলতা আনায়নের কাজ করে যাচ্ছ্ এবং আশানুরুপ সকল প্রকার চেষ্টা অব্যহত রাখা  হবে ।

পরিবার পরিকল্পানা পরিদর্শক/এফ ডাব্লিউ এ/ইউপি সদস্য/সদস্যা গন ।

 

স্বাস্থ্য বিভাগ

মোঃ হাফিজুর রহমান সহকারী স্ব্যাস্থ্য পরিদর্শক সভাকে জানান য়ে,তার বিভাগে নিয়মিত ভাবে ভিটামিন  এ ক্যাপসুল ভখাওয়ান ওপলিও টিকা  দেওয়া এবং কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নিয়মিত সবো প্রদান করা হচ্ছে ।আগামিতে স্ব্যাস্থ্য সেবা জোরদার করা হবে ।

৫ বছরের নিচের সকল শিশুকে টিকা দেওয়া এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোেধর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিশুকে ৬ মাস পরপর কৃমিনাশক খাওয়ানো হচ্ছে এবং আর্সোনক পরীক্ষা করা হচ্ছে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিশেষ প্রয়োজন ।বিষয়গুলি আরও জুরুরী ভাবে বিবেচনায় আনতে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।

সহকারী স্বস্থ্য পরিদর্শক ,বাঘারপাড়া, যশোর ।

১০

সমাজ সেবা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি।

 

 

১১

আনছার ভি ,ডি,পি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১২

জন স্বাস্হ্য প্রকৌশল  বিভাগ

মোঃ ইউছুপ আলী নলকুপ ম্যাকানিক জানান যে, তার বিভাগ নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০১১/১২ ।আর্থ বৎসরে দরাজহাট ইউনিয়নের মোট=৪ টা গভীর নলকুপ ও ২টা অগভীর নলকুপ সুষ্ঠ ভাবে স্হাপন করা হইয়াছে।

স্হাপন করা নলকুপ গুলি নিয়মিত ভাবে দেখা শূনা করা হচ্ছে।

মোঃ ইউছুপ  নলকুপ ম্যাকানিক ও সদস্য /সদস্যা গণ ।

১৩

বি আর ডি বি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৪

ম্যারেজ রেজিষ্টার

মোঃ ফারুক হোসেন ম্যারেজ রেজিষ্টার সভাকে জানান যে,অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে বিনা রেজিষ্টারে কোন বিবাহ হয়নি এবং কোন অপ্রাপ্ত ছেলে মেয়েদের বিবাহ হয়নি ।আপ্রাপ্ত কোন ছেলে মেয়েদের যাতে বিবাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে ।

ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও ম্যারেজ রেজিষ্টার অপ্রাপ্ত বালক -বালিকা বিবাহ না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবে । 

 

১৫

সি ও এল জি ই ডি

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৬

বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা প্রতিনিধি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৭

স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধি

মোঃ আবু খায়ের ব্যাবস্যায়ী প্রতিনিধী সভাকে জানান যে,বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মানুষের  চাগহদা মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছেএবং বাজারে মালামাল  সাধারন মানুষের  ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আছে ।

ইউনিয়নের সকল বাজারের ব্যবসা যাহাতে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হতে পারে সে বিষয় লক্ষ রাখবে ।

বাজার ব্যাবসা কমিটি ও ইউনিয়ন  পরিষদ

১৮

ধর্মীয় নেতা

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৯

নারী প্রতিনিধি

ছকিনা বেগম সভাকে জানান যে, প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় ।

প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় । উক্ত বিষয়টি সভায় গৃহিত হইলো ।

সদস্যা ইউনিয়ন পরিষদ

২০

বিবিধ

মোঃ আনোয়ার হোসেন সুপার সদস্য স্হায়ী কমিটি সভাকে জানান যে,ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ যেমন-কাবখা, টি আর এডিপি,কর্মসৃজন  সুষ্ঠভাবে  সম্পান্নকরা হইতেঝে। ভবিষ্যাতে অত ইউনিয়নে উন্নয়ন কার্য্যক্রম ভাল হয় ।সে বিষয়ে উস্থিত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গনকে একমত পোষন করেন।

 

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সদস্যাগণ

 

পূর্ববর্তী সভার কার্য্য বিবরণী পঠন ও অনুমোদন

মোঃ জাকির হোসেন চেয়ারম্যান,দরাজহাট ইউনিয়নপরিষদ পূর্ববর্তী মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত পাঠ করে শুনান

পূর্ববর্তী সভার কার্য বিবরণী উপস্হিত সকলের সমস্মুখে পাঠ করিয়া শোনান  হইল এবং অনুমোদিত হইল ।

চেয়ারম্যান দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ

কৃষি বিভাগ

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ শাহাদৎ হোসেন সভাকে জানান যে, বর্তমান বোরো ধান মৌসুমে সারের কোন ঘাটতি নেই ।এলাকায় প্রচুর বোরো ধানের চাষ হয়েছে ।আশা করা যায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হইবে ।

যে সমস্ত জমিতে সরিষা, ছোলা, মুসুরী, গম, ছিল ঐ জমিতে কৃষককে আউশ ধান ও পাঠ চাষের এবং তিল চাষের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা

এল, জি, ই ,ডি

মোছাঃ মমতাজ বেগম উপ-সহকারী প্রকৌশলী ,বাঘারপাড়া , যশোর । সভাকে জানান যে, তার দপ্তরের বরাদ্ধকৃত এডিপি ও কাজের প্রকল্প  প্রস্তুত করা হইয়াছে ।এবং কাজ গুলো সুষ্ঠ ভাবে তদারকি করা হচ্ছে এবং কাজের মান খুব ভাল ।

বরাদ্ধকৃত যাবতীয় কাজের নিয়মিত দেখাশুনা করা হচ্ছে ।

উপ-সহকারী প্রকৌশলী , বাঘারপাড়া যশোর ।

শিক্ষা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলচনা হয়নি ।

 

 

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

শ্রী ভুপেন চন্দ্র কৃত্রিম প্রজনন প্রানী সম্পদ বিভাগ জানান যে, ফেবুয়ারী/১৩ মাসে কৃত্রিম প্রজনের হার ১০৮% এবং মার্চ /১৩ মাসের কৃত্রিম প্রজনের হার ৭৫% অর্জিত হয়েছে ।তার বিভাগে ইউনিয়নের সমস্ত স্থানে প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কৃমি নাশক ঔষধ ক্রয় ও সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত  হয় ।

ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট কৃত্রিম প্রজনন

প্রাণী সম্পদ বিভাগ

মোঃ শাহাজান সিরাজ ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ বিভাগ সভাকে জানান যে, তার দপ্তরে নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে মোট ৫টি মুরগীর খামার দুইটি গাভীর খামার দুইটি ছাগলের খামার দইটি প্লটে উন্নত জাতের হাস চাষ করা হচ্ছে ।খামারী গণকে নিয়মিত ভাবে পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে ।

আগামীতে ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ  হইতে কিছু কিছু সহযোগিতা করা হইবে ।

ভেটোনারী ফিল্ড এ্যাসিস্টান্ড প্রাণী সম্পদ

বিভাগ

 

মৎস্য বিভাগ

বিপুল কুমার সরকার ফিল্ড এ্যাসিস্ট্যান্ট মৎস্য বিভাগ, জানান যে তার দপ্তরে ।অত্র দরাজহাট ইউনিয়নের পুকুরিয়া ও কালিকাপুর গ্রামে জাতিয় কৃষি প্রযুক্তি প্কল্পের আওতায়  ২টি সি আ্‌ই জি আছে ।তাদের মোট =৩০ টি জলাশয়ে পোনা মজুদের পূর্ব প্রস্তুতের কাজরে পরামর্শ দেওয়া হইয়াছে ।২ টি সি আই জিতে  কমিটি গঠন করিয়া কমিটি/ সমিতি এর নামে ছাতিয়ানতলাজনতা ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট  খোলা ব্যাবস্থা করা হইয়াছে ।তাহা ইউনিয়নের বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করাহ ইয়াছে।

।প্রশিক্ষন প্রাপ্ত মৎস্য চাষীদের  প্রকুর পরিদর্শন ও মাছ চাষে পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে । এনএটিপি প্রকল্পের অধীনে ২টি প্রদর্শনী স্থাপনের কাজ প্রাথমিক ভাবে শেষ করা হয়েছে । বিভিন্ন হাট বাজারে ফরমালিন দূষনের ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি সহ মাছের ফরমালিন টেষ্ট করা হচ্ছে ।

বিপুল কুমার সরকার , ফিল্ড এ্যাসিষট্যান্ট মৎস্য বিভাগ ।

পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ

মোঃ মিজানুর রহমান পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক জানান যে তার বিভাগের আত্র দরাজহাট ইউনিয়নে চলতি অর্থ বৎসরে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার-

১)বন্ধ্যা করনের হার=১০২.৭৭%(২)আই ইউ ডি-হার=২৫.৯২ (৩)ইমপ।লন্ট হার=৯৪.১১% ৪) খাবার বড়ীরহার=৮৯.১০% ৫) কন্ডমের হার =১৪৮.২% ৬) ইনজেকসনের হার=৮৮.৪৪% ।

 

অত্র ইউনিয়নের পরিবার পরিকল্পনা কার্য্যক্রম সফলতা আনায়নের কাজ করে যাচ্ছ্ এবং আশানুরুপ সকল প্রকার চেষ্টা অব্যহত রাখা  হবে ।

পরিবার পরিকল্পানা পরিদর্শক/এফ ডাব্লিউ এ/ইউপি সদস্য/সদস্যা গন ।

 

স্বাস্থ্য বিভাগ

মোঃ হাফিজুর রহমান সহকারী স্ব্যাস্থ্য পরিদর্শক সভাকে জানান য়ে,তার বিভাগে নিয়মিত ভাবে ভিটামিন  এ ক্যাপসুল ভখাওয়ান ওপলিও টিকা  দেওয়া এবং কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে নিয়মিত সবো প্রদান করা হচ্ছে ।আগামিতে স্ব্যাস্থ্য সেবা জোরদার করা হবে ।

৫ বছরের নিচের সকল শিশুকে টিকা দেওয়া এবং ম্যালেরিয়া প্রতিরোেধর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে । এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিশুকে ৬ মাস পরপর কৃমিনাশক খাওয়ানো হচ্ছে এবং আর্সোনক পরীক্ষা করা হচ্ছে ও কমিউনিটি ক্লিনিকে বিদ্যুৎ সংযোগ বিশেষ প্রয়োজন ।বিষয়গুলি আরও জুরুরী ভাবে বিবেচনায় আনতে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।

সহকারী স্বস্থ্য পরিদর্শক ,বাঘারপাড়া, যশোর ।

১০

সমাজ সেবা বিভাগ

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি।

 

 

১১

আনছার ভি ,ডি,পি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১২

জন স্বাস্হ্য প্রকৌশল  বিভাগ

মোঃ ইউছুপ আলী নলকুপ ম্যাকানিক জানান যে, তার বিভাগ নিয়মিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে ২০১১/১২ ।আর্থ বৎসরে দরাজহাট ইউনিয়নের মোট=৪ টা গভীর নলকুপ ও ২টা অগভীর নলকুপ সুষ্ঠ ভাবে স্হাপন করা হইয়াছে।

স্হাপন করা নলকুপ গুলি নিয়মিত ভাবে দেখা শূনা করা হচ্ছে।

মোঃ ইউছুপ  নলকুপ ম্যাকানিক ও সদস্য /সদস্যা গণ ।

১৩

বি আর ডি বি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৪

ম্যারেজ রেজিষ্টার

মোঃ ফারুক হোসেন ম্যারেজ রেজিষ্টার সভাকে জানান যে,অত্র দরাজহাট ইউনিয়নে বিনা রেজিষ্টারে কোন বিবাহ হয়নি এবং কোন অপ্রাপ্ত ছেলে মেয়েদের বিবাহ হয়নি ।আপ্রাপ্ত কোন ছেলে মেয়েদের যাতে বিবাহ না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে ।

ইউনিয়নের পক্ষ হতে ও ম্যারেজ রেজিষ্টার অপ্রাপ্ত বালক -বালিকা বিবাহ না হয় সে দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখবে । 

 

১৫

সি ও এল জি ই ডি

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৬

বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা প্রতিনিধি

প্রতিনিধি না থাকায় কোন প্রকার আলোচনা হয় নি ।

 

 

১৭

স্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধি

মোঃ আবু খায়ের ব্যাবস্যায়ী প্রতিনিধী সভাকে জানান যে,বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মানুষের  চাগহদা মোতাবেক পাওয়া যাচ্ছেএবং বাজারে মালামাল  সাধারন মানুষের  ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে আছে ।

ইউনিয়নের সকল বাজারের ব্যবসা যাহাতে সুষ্ঠ ভাবে পরিচালিত হতে পারে সে বিষয় লক্ষ রাখবে ।

বাজার ব্যাবসা কমিটি ও ইউনিয়ন  পরিষদ

১৮

ধর্মীয় নেতা

প্রতিনিধি না থাকায়  কোন আলোচনা হয়নি।

 

 

১৯

নারী প্রতিনিধি

ছকিনা বেগম সভাকে জানান যে, প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় ।

প্রত্যেক ওয়ার্ডে মহিলা সদস্যগণকে নারসমাবেশ করা জন্য ও মহিলাদের সচেতন করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয় । উক্ত বিষয়টি সভায় গৃহিত হইলো ।

সদস্যা ইউনিয়ন পরিষদ

২০

বিবিধ

মোঃ আনোয়ার হোসেন সুপার সদস্য স্হায়ী কমিটি সভাকে জানান যে,ইউনিয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ যেমন-কাবখা, টি আর এডিপি,কর্মসৃজন  সুষ্ঠভাবে  সম্পান্নকরা হইতেঝে। ভবিষ্যাতে অত ইউনিয়নে উন্নয়ন কার্য্যক্রম ভাল হয় ।সে বিষয়ে উস্থিত ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য গনকে একমত পোষন করেন।

 

ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও সদস্যাগণ

নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ...নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ...নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ...বাঘারপাড়া থেকে ফিরে উজ্জ্বল বিশ্বাস : নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ভোগান্তির শেষ ছিল না সেবাগ্রহীতা জনগণের। সে অধ্যায়ের ইতি টানলেন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। তার হাতেই নির্মিত হলো আধুনিক ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স। যার উদ্বোধন করলেন যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়।
দরাজহাট ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্য পূর্ণ ইউনিয়ন। পাইকপাড়া, কড়াইতলা, বাঘারপাড়া, মহিরণ, লক্ষ্মীপুর, হাবুল্যা, পুকুরিয়া, শুকদেবপুর, আল্লাইপুর, কালিকাপুর, লক্ষীনারায়নপুর, গড়, পারকুল, বুধোপুর, ছাতিয়ানতলা, দরাজহাট, বলরামপুর, সৈয়দ মাহমুদপুর, দাঁদপুর মিলে ১৯ গ্রামের মানুষের সেবা প্রদানে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গতকাল নব-নির্মিত দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের  উদ্বোধন করা হয়।
এ উপলক্ষে মঙ্গলবার ইউনিয়ন পরিষদে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাঘারপাড়া বরাবর একটি অবহেলিত উপজেলা ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকার আমলে উপজেলার চিত্র পাল্টে গেছে। রাস্তাঘাট, মসজিদ-মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন উন্নয়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কতটা উন্নয়ন হয়েছে তা  তার চেয়ে এ উপজেলার জনগণই ভাল বলতে পারবেন।
এমপি রনজিৎ রায় বলেন, দেশের প্রতিটি অঞ্চলে বিএনপি-জামায়াত গুপ্তঘাঁটি গেড়েছে। দেশের মানুষ যখন সার্বিক দিক দিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করছে ঠিক সেই মুহুর্তে তারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে। তারা বহিঃবিশ্বের সাথে হাত মিলিয়ে বিভিন্ন জঙ্গি তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। জঙ্গীবাদ ও ষড়যন্ত্র রুখতে তাই সকলকে সতর্ক থাকার আহবান জানান তিনি।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন দরাজহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাঘারপাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়ারুল ইসলাম, ওসি এনামুল হক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ।
আরো বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অরুণ অধিকারী, ধলগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অভিরাম দেবনাথ, দোহাকুলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু মোতালেব তরফদার, আওয়ামী লীগ নেতা নরেন্দ্র দেবনাথ, শচিন্দ্র নাথ বিশ্বাস, আবু মোতালেব মোল্যা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি গোলাম সরোয়ার, পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কামরুজ্জামান বাচ্চু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল মোল্লা, পূজা উদযাপন পরিষদের ইউনিয়ন সভাপতি অশোক সাহা, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি দুল্লা আল মামুন, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা কামাল সুমন, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুলফিক্কার আলী জুলাই, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান লিটন, এনায়েত হোসেন লিটন, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক রেহমানুজ্জামান বাবু, উপজেলা বাস্তহারা লীগের সভাপতি সুলতান আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহম্মেদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফয়জুর রহমান ও উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক রেহমানুজ্জামান বাবু।  
- See more at: http://gramerkagoj.com/2014/11/26/45236.html#sthash.ybDz8zpY.dpuf
বাঘারপাড়া থেকে ফিরে উজ্জ্বল বিশ্বাস : নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ভোগান্তির শেষ ছিল না সেবাগ্রহীতা জনগণের। সে অধ্যায়ের ইতি টানলেন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। তার হাতেই নির্মিত হলো আধুনিক ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স। যার উদ্বোধন করলেন যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়।
দরাজহাট ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্য পূর্ণ ইউনিয়ন। পাইকপাড়া, কড়াইতলা, বাঘারপাড়া, মহিরণ, লক্ষ্মীপুর, হাবুল্যা, পুকুরিয়া, শুকদেবপুর, আল্লাইপুর, কালিকাপুর, লক্ষীনারায়নপুর, গড়, পারকুল, বুধোপুর, ছাতিয়ানতলা, দরাজহাট, বলরামপুর, সৈয়দ মাহমুদপুর, দাঁদপুর মিলে ১৯ গ্রামের মানুষের সেবা প্রদানে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গতকাল নব-নির্মিত দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের  উদ্বোধন করা হয়।
এ উপলক্ষে মঙ্গলবার ইউনিয়ন পরিষদে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাঘারপাড়া বরাবর একটি অবহেলিত উপজেলা ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকার আমলে উপজেলার চিত্র পাল্টে গেছে। রাস্তাঘাট, মসজিদ-মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন উন্নয়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কতটা উন্নয়ন হয়েছে তা  তার চেয়ে এ উপজেলার জনগণই ভাল বলতে পারবেন।
এমপি রনজিৎ রায় বলেন, দেশের প্রতিটি অঞ্চলে বিএনপি-জামায়াত গুপ্তঘাঁটি গেড়েছে। দেশের মানুষ যখন সার্বিক দিক দিয়ে সুখে শান্তিতে বসবাস করছে ঠিক সেই মুহুর্তে তারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে। তারা বহিঃবিশ্বের সাথে হাত মিলিয়ে বিভিন্ন জঙ্গি তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। জঙ্গীবাদ ও ষড়যন্ত্র রুখতে তাই সকলকে সতর্ক থাকার আহবান জানান তিনি।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন দরাজহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাঘারপাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়ারুল ইসলাম, ওসি এনামুল হক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাবেক ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ।
আরো বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অরুণ অধিকারী, ধলগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অভিরাম দেবনাথ, দোহাকুলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু মোতালেব তরফদার, আওয়ামী লীগ নেতা নরেন্দ্র দেবনাথ, শচিন্দ্র নাথ বিশ্বাস, আবু মোতালেব মোল্যা, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি গোলাম সরোয়ার, পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক কামরুজ্জামান বাচ্চু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল মোল্লা, পূজা উদযাপন পরিষদের ইউনিয়ন সভাপতি অশোক সাহা, ইউনিয়ন কৃষকলীগের সভাপতি দুল্লা আল মামুন, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী, আওয়ামী লীগ নেতা মোস্তফা কামাল সুমন, সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুলফিক্কার আলী জুলাই, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান লিটন, এনায়েত হোসেন লিটন, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক রেহমানুজ্জামান বাবু, উপজেলা বাস্তহারা লীগের সভাপতি সুলতান আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহম্মেদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফয়জুর রহমান ও উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক রেহমানুজ্জামান বাবু।  
- See more at: http://gramerkagoj.com/2014/11/26/45236.html#sthash.ybDz8zpY.dpuf
বাঘারপাড়া থেকে ফিরে উজ্জ্বল বিশ্বাস : নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ভোগান্তির শেষ ছিল না সেবাগ্রহীতা জনগণের। সে অধ্যায়ের ইতি টানলেন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। তার হাতেই নির্মিত হলো আধুনিক ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স। যার উদ্বোধন করলেন যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়।
দরাজহাট ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্য পূর্ণ ইউনিয়ন। পাইকপাড়া, কড়াইতলা, বাঘারপাড়া, মহিরণ, লক্ষ্মীপুর, হাবুল্যা, পুকুরিয়া, শুকদেবপুর, আল্লাইপুর, কালিকাপুর, লক্ষীনারায়নপুর, গড়, পারকুল, বুধোপুর, ছাতিয়ানতলা, দরাজহাট, বলরামপুর, সৈয়দ মাহমুদপুর, দাঁদপুর মিলে ১৯ গ্রামের মানুষের সেবা প্রদানে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গতকাল নব-নির্মিত দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের  উদ্বোধন করা হয়।
এ উপলক্ষে মঙ্গলবার ইউনিয়ন পরিষদে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাঘারপাড়া বরাবর একটি অবহেলিত উপজেলা ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকার আমলে উপজেলার চিত্র পাল্টে গেছে। রাস্তাঘাট, মসজিদ-মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন উন্নয়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কতটা উন্নয়ন হয়েছে তা  তার চেয়ে এ উপজেলার জনগণই ভাল বলতে পারবেন।
- See more at: http://gramerkagoj.com/2014/11/26/45236.html#sthash.ybDz8zpY.dpuf
বাঘারপাড়া থেকে ফিরে উজ্জ্বল বিশ্বাস : নবনির্মিত ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স উদ্বোধনের মধ্যে দিয়ে পূরণ হলো দরাজহাট ইউনিয়নবাসীর দীর্ঘদিনের চাওয়া। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বাঘারপাড়া উপজেলার এ ইউনিয়নে ছিল না নিজস্ব কোন ভবন। স্ব-উদ্যোগে বিভিন্ন স্থানে অফিস বানিয়ে বিগত চেয়ারম্যানগণ জনগণের সেবা দিতেন। যার ফলে ভোগান্তির শেষ ছিল না সেবাগ্রহীতা জনগণের। সে অধ্যায়ের ইতি টানলেন চেয়ারম্যান জাকির হোসেন। তার হাতেই নির্মিত হলো আধুনিক ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স। যার উদ্বোধন করলেন যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রণজিৎ কুমার রায়।
দরাজহাট ইউনিয়ন একটি ঐতিহ্য পূর্ণ ইউনিয়ন। পাইকপাড়া, কড়াইতলা, বাঘারপাড়া, মহিরণ, লক্ষ্মীপুর, হাবুল্যা, পুকুরিয়া, শুকদেবপুর, আল্লাইপুর, কালিকাপুর, লক্ষীনারায়নপুর, গড়, পারকুল, বুধোপুর, ছাতিয়ানতলা, দরাজহাট, বলরামপুর, সৈয়দ মাহমুদপুর, দাঁদপুর মিলে ১৯ গ্রামের মানুষের সেবা প্রদানে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গতকাল নব-নির্মিত দরাজহাট ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্সের  উদ্বোধন করা হয়।
এ উপলক্ষে মঙ্গলবার ইউনিয়ন পরিষদে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। যশোর-৪ বাঘারপাড়া আসনের সংসদ সদস্য রনজিৎ কুমার রায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, বাঘারপাড়া বরাবর একটি অবহেলিত উপজেলা ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকার আমলে উপজেলার চিত্র পাল্টে গেছে। রাস্তাঘাট, মসজিদ-মন্দির, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন উন্নয়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, কতটা উন্নয়ন হয়েছে তা  তার চেয়ে এ উপজেলার জনগণই ভাল বলতে পারবেন।
- See more at: http://gramerkagoj.com/2014/11/26/45236.html#sthash.ybDz8zpY.dpuf


Share with :
Facebook Twitter